August 23, 2019
  • মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য কাজ করছি : প্রধানমন্ত্রী
  • চলমান মামলা নিয়ে গণমাধ্যমে রিপোর্টে বাধা নেই: আইনমন্ত্রী
  • বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে দেশের সব বেসরকারি টিভি
  • কালশী থেকে বাউনিয়া খাল পর্যন্ত পাইপ ড্রেন
  • ঝড়ে বায়তুল মোকাররমে দুর্ঘটনায় তদন্ত কমিটি
  • ধানের দাম কম হওয়ায় সরকার চি‌ন্তিত : কৃ‌ষিমন্ত্রী
  • রোববার থেকে অফিস করবেন ওবায়দুল কাদের
  • প্রথম জয়ের দিনে প্রথম শিরোপা বাংলাদেশের
  • রমজানে খাবার কেমন হবে
  • ‘আন্দোলনের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে’

এইচএসসি পরীক্ষায় ৬ মে পর্যন্ত বন্ধ কোচিং


বার্তা৭১ ডটকমঃ এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা ঘিরে আগামী ১ এপ্রিল থেকে ৬ মে পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

সোমবার সচিবালয়ে এই পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে শেষ করতে গঠিত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘সুন্দর এবং নকলমুক্ত পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠানে সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যেহেতু আমরা বিশেষ কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছি না, তাই সব কোচিং বন্ধ রাখছি।’

তিনি বলেন, ‘কোচিং বন্ধ থাকায় সাময়িক অসুবিধা হবে সত্য। কিন্তু, একটি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে শেষ হতে আশা করছি, এই অসুবিধা মেনে নিয়ে অভিভাবকরা আমাদের সহযোগিতা করবেন।’

দীপু মনি হুঁশিয়ার করেন, ‘বন্ধের সময়ে অনেকেই অসাধু উপায়ে কোচিং পরিচালনা করেন। এমনটি পেলে এবার কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

তিনি জানান, এ বছর এইচএসসিতে ১৩ লাখ ৫১ হাজার ৩০৯ জন পরীক্ষায় বসছে।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, পরীক্ষা নকলমুক্ত রাখতে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় বেশকিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে— পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগেই সব শিক্ষার্থীকে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করতে হবে। অনিবার্য কারণে কোনো পরীক্ষার্থী কেন্দ্রে আসতে দেরি করলে, তা কেন্দ্রের রেজিস্টারে নাম, ক্রমিক নং ও বিলম্বের কারণ উল্লেখ করতে হবে। বিষয়টি কেন্দ্র সচিব অবশ্যই বোর্ডকে অবহিত করবেন।

তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ব্যতীত পরীক্ষা কেন্দ্রে অন্য কেউ মোবাইল ফোন বা অননুমোদিত ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন না। ছবি তোলা বা ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায় না এমন একটি মোবাইল ফোন শুধুমাত্র কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত সচিব ব্যবহার করতে পারবেন।’

দীপু মনি বলেন, ‘প্রত্যেক কেন্দ্রের জন্য একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হবে। তিনি ট্রেজারি বা থানা হেফাজত থেকে কেন্দ্র সচিবসহ প্রশ্ন বের করে পুলিশ প্রহরায় সকল সেটের প্রশ্ন কেন্দ্রে নিয়ে যাবেন। পরীক্ষা শুরু হওয়ার ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নের সেট কোড ঘোষণা করা হবে। সেই অনুযায়ী কেন্দ্রের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরকারি কর্মকর্তার উপস্থিতিতে প্রশ্নের প্যাকেট বিধি মোতাবেক খুলবেন।’

তিনি বলেন, ‘পরীক্ষা চলাকালে পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে শিক্ষক, ছাত্র ও কর্মচারীদের মোবাইল, মোবাইল ফোনের সুবিধাসহ ঘড়ি, কলম এবং পরীক্ষা কেন্দ্রে ব্যবহারের অনুমতিবিহীন যে কোনো ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার নিষিদ্ধ থাকবে। পরীক্ষার আগে ও পরে যদি কোনো মোবাইল নম্বরে একাধিকবার একই অঙ্কের টাকার সন্দেহজনক লেনদেন হয় তাহলে সংশ্লিষ্ট এজেন্টকে নিকটস্থ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করতে হবে।’

শিক্ষামন্ত্রী জানান, এ বছর বাংলা ভার্সনের জন্য সৃজনশীল রচনামূলক প্রশ্ন, বহুনির্বাচনী প্রশ্ন ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য মোট ৯৫০টি প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়েছে। ইংরেজি ভার্সন এর জন্য সৃজনশীল রচনামূলক প্রশ্ন, বহুনির্বাচনী প্রশ্ন ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য মোট ৮৯২টি প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়েছে। এ ছাড়া ভিন্ন ভিন্ন বোর্ডের জন্যে ১৪টি বিষয়ের ২৭টি পত্রের জন্য সৃজনশীল রচনামূলক প্রশ্ন, বহুনির্বাচনী প্রশ্ন ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য মোট ২১০০টি প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়েছে।

বিভাগ - : জাতীয়, শিক্ষাঙ্গন

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন