August 18, 2019
  • মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য কাজ করছি : প্রধানমন্ত্রী
  • চলমান মামলা নিয়ে গণমাধ্যমে রিপোর্টে বাধা নেই: আইনমন্ত্রী
  • বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে দেশের সব বেসরকারি টিভি
  • কালশী থেকে বাউনিয়া খাল পর্যন্ত পাইপ ড্রেন
  • ঝড়ে বায়তুল মোকাররমে দুর্ঘটনায় তদন্ত কমিটি
  • ধানের দাম কম হওয়ায় সরকার চি‌ন্তিত : কৃ‌ষিমন্ত্রী
  • রোববার থেকে অফিস করবেন ওবায়দুল কাদের
  • প্রথম জয়ের দিনে প্রথম শিরোপা বাংলাদেশের
  • রমজানে খাবার কেমন হবে
  • ‘আন্দোলনের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে’

বৈশাখে সারাদিনের পারফেক্ট সাজগোজ


বার্তা৭১ ডটকমঃ বৈশাখের উৎসব আমাদের বাঙালি জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সব বাঙালির প্রাণের উৎসব। বাঙালিদের উৎসবগুলোর মধ্যে সব থেকে ভিন্ন বৈশিষ্ট্য ও ঐতিহ্যে বহন করে বৈশাখ। এই উৎসবকে ঘিরে তরুন-তরুনীদের বৈশাখের রঙে নিজেদের রাঙাতে থাকে নানান আয়োজন। মাথার চুল থেকে পা পর্যন্ত সাজে বাঙালি ললনারা। বৈশাখের সাথে সাথে আসে প্রচণ্ড গরম।

পহেলা বৈশাখে সারাটা দিন জুড়ে অনেক গরম থাকে। যাকেই বলা যায় ঘোরাঘুরির কথা, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বলতে শোনা যায় যে সন্ধ্যার পর ঘরের বাইরে বের হবে। কারণ একটাই, সূর্যের গা-পোড়া তাপ! আর যারা সকালে বের হন, মেকআপ গলে যাওয়ার সমস্যাটার সম্মুখীন কম-বেশি সবাইকেই হতে হয়। ঘর থেকে একদম পারফেক্ট মেকআপ করে বের হয়ে কিছুক্ষণ পর মেকআপ গলে চেহারাটা ভালোরকমেই হ-য-ব-র-ল হয়ে যায় এবং সেটা আবার শুরুর মত পারফেক্ট করাটাও সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়।

তাই পহেলা বৈশাখের সারাটা দিন জুড়ে কিভাবে পারফেক্টলি করা মেকআপটাকে ধরে রাখা যায়, তা নিয়েই কিছু প্রয়োজনীয় পরামর্শ আমাদের সবারই জেনে রাখা দরকার।

সাজগোজ

বৈশাখে সুতি শাড়ি বেছে নেওয়া ভালো। আগে সাদা-লাল পাড়ের শাড়ি পরা হতো, কিন্তু এখন নানা রঙের শাড়ি পরা হয় বৈশাখে। বৈশাখের নানা রঙের শাড়ি পরে মেয়েরা। একরঙা সুতি শাড়িতে চিকন পাড় ভালো লাগে। যেহেতু গরম তাই হাফহাতা বা স্লিভলেস ব্লাউজ পরতে পারেন। আবার শাড়ির সাথে মিল রেখে বাটিকের ব্লাউজ পরতে পারেন। এই দিনে শাড়ি বাঙালী স্টাইলে পরলেই ভালো লাগবে।

অনেকেই শাড়ির বদলে গরমের জন্য সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া পরতে পছন্দ করে। যেহেতু উৎসবটি একেবারে দেশীয় সংস্কৃতির তাই মেয়েদের জন্য শাড়ি, আর ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবীটাই বেশি মানানসই।

নিজেকে সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে তুলতে মেকআপ করাটা জরুরী। তবে সেটা হওয়া উচিত হাল্কা বেইজের। কারণ দীর্ঘ সময় গরমে বাইরে থাকতে হয় এই দিনে। প্রধান করণীয়গুলোর মধ্যে হলো পরিচ্ছন্ন থাকা এবং উৎসবের কয়েকদিন আগে থেকে ত্বকের যত্ন নিয়ে রাখা। মেকআপ করার আগে মুখে বরফ টুকরা ঘষে নিন এতে মেকআপ ত্বকের ভেতরে যাবেনা আর ঘাম কম হবে। হাল্কা ফেস পাউডার ব্যবহার করুন। চোখ গাড় করে সাজান। গাড় লিপস্টিক ব্যবহার করুন। ব্যাস সাধারণ তবে আকর্ষণীয় লুকে হয়ে যাবে বৈশাখের সাজ।

শাড়ির সঙ্গে গয়না না হলে কি চলে? সেক্ষেত্রে মাটির গয়না বেছে নেয়া ভালো। মাটির মালা হতে হবে লম্বা। আবার কাঠ, রূপা, মুক্তা বা তামার মালা পরতে পারেন।ভারি গয়না পরতে না চাইলে ফুলের মালা বেছে নিন। বাঙালি নারীর হাত ভর্তি চুড়ি তো থাকতেই হবে! গয়না না পরলেও দুহাত ভর্তি চুড়ি সাজ পূর্ণ করে দেয়। শাড়ির পাড়ের সঙ্গে মিলিয়ে রেশমি চুড়ি পরতে পারেন। মাটির বা কাঠের চুড়িও কিন্তু বেশ মানিয়ে যায়। পোশাকের রঙের প্রাধান্য যেটাই থাকুক না কেন, হাতে থাকা চাই রেশমি চুড়ি।

যেহেতু পহেলা বৈশাখে বেশ গরম থাকে সেহেতু ত্বকের কথা চিন্তা করে এখন থেকেই রূপচর্চা করা প্রয়োজন। কেননা এই দিনে অন্যদের থেকে নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে কার না ভালো লাগে।

ত্বকের যত্ন

তাই অন্তত তিন-চারদিন আগে থেকেই ত্বকের বিশেষ যত্ন নেওয়া শুরু করতে হবে। ত্বকে যদি কোনো ধরণের সমস্যা যেমন- ব্ল্যাক হেডস, প্যাচেস, ব্রণ ইত্যাদি থাকে তাহলে এখন থেকেই পরিচর্যার মাধ্যমে ঠিক করতে হবে। ত্বক সুন্দর থাকলে তাতে হালকা বা ভারী যে কোনো মেকাপেই হোক না কেন মুখের সঙ্গে মানিয়ে যাবে।

শুধু তাই নয়, এসময় নিজেকে খুব সাবধানে থাকতে হবে। বাহিরের রোদ, ধুলোবালি এড়িয়ে চলতে হবে। কেননা প্রচণ্ড রোদে মুখ পোড়াভাবের সৃষ্টি হয় বা ধুলোবালি লেগে ত্বক তৈলাক্তে পরিণত হতে পারে। তাই বাহিরে বের হওয়ার সময় নিয়মিত সানব্লক ব্যবহার ও বাড়িতে ফিরে ঠিক মতো মেইকআপ তুলে প্রাকৃতিক প্যাক ব্যবহার করতে হবে।

যাদের ত্বক শুষ্ক তারা এই কয়েকটা দিন ত্বকে ঠিকভাবে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। ত্বক ভেতর থেকে সতেজ দেখাবে। তাছাড়া শুষ্ক ত্বক অনেক বেশি নির্জীব দেখায়, মেইকআপ ঠিক মতো বসতে চায় না। তাই নিয়মিত ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারে ত্বক আর্দ্র দেখানোর পাশাপাশি উজ্জ্বল লাগবে।

ব্ল্যাক হেডসের সমস্যা যাদের আছে তারা বাসায় বা পার্লারে গিয়ে ব্ল্যাক হেডস তুলতে পারেন। বাজারে চারকোলের ব্ল্যাক মাস্ক পাওয়া যায়, এটা ব্ল্যাক ও হোয়াইট হেডস ওঠাতে সাহায্য করে।

ত্বকে কোনো ধরনের ‘প্যাচেস’ বা দাগ ছোপ থাকলে ‘মাসাজ’ করলে উপকার পাওয়া যাবে। ‘মাসাজ’ ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় ও ময়লা দূর করে। ফলে ত্বকের অনেক সমস্যা কমে আসে। এছাড়া ত্বক অপরিষ্কার থাকলে ব্রণ উঠে তাই যতটা সম্ভব মুখের ত্বক পরিষ্কার রাখতে হবে।

শসার রস ব্রণ কমায় ও দাগ দূর করে। এছাড়া টমেটোর রস, অ্যালোভেরা, ডাল বাটা, মুলতানী মাটি ইত্যাদির সাহায্যে বাড়িতেই ত্বকের যত্ন নেওয়া যেতে পারে।

বিভাগ - : বিনোদন, লাইফস্টাইল

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন